নন্দীগ্রামে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন

নন্দীগ্রামে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন

এভাবেই অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে ।

ফজলুর রহমান : 

বগুড়া নন্দীগ্রাম উপজেলার মধ্যে দিয়ে বহমান নাগর নদী। এই নদী থেকে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। যার ফলে রাস্তা ঘাট সহ ফসলি জমি গুলি হুমকির মুখে পরছে। হুমকির মুখে রয়েছে নদী তীরবর্তী চলাচলের রাস্তা। স্থানীয় লোকজন জানায়,এ নদীর নাগরকান্দি বটতলী সহ বিভিন্ন স্থান থেকে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে মাটি ও বালু উত্তোলন করে আসছে একটি প্রভাবশালী চক্র। এই চক্রটি বালু বিক্রয় করে হাজার হাজার টাকা কামাচ্ছে কিন্তু তারা প্রভাবশালী হওয়ার কারনে তাদের বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেনা। ইতিপূর্বে এই নদী খেকে বালু উত্তোলন করার সময় মেশিন সহ বালু উত্তোলন করন বিভিন্ন যন্ত্র পাতি আটক করা হয় এবং তাদের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেওয়া হয় কিন্ত বর্তমানে একটি প্রভাবশালী মহলের মদতে বালু উত্তোলন ও বিক্রয় করা হচ্ছে।এই বালু দিয়ে স্থানিয় ভাবে রাস্তা ঘাট ও বিল্ডিং নির্মান করা হচ্ছে। বালু উত্তোলন কারিরা প্রভাবশালী হওয়ার কারনে তাদের বিরুদ্ধে কেউ লিখিত অভিযোগ দিতে চান না।প্রতিদিন ভোর থেকে রাত পর্যন্ত চলে মাটিকাটাও বালু উত্তোলনের কাজ , ওই বালু ট্রাক সহ বিভিন্ন যানবাহনে করে নিয়ে যাওয়ার ফলে রাস্তা ঘাট নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।স্থানীয় ব্যাক্তিরা এই প্রতিনিধিকে জানান নদী থেকে মাটি কাটা ও বালু উত্তোলন বন্ধ করতে হবে এলাকাবাসী বালু উত্তোলনের কাজ বন্ধ করার জন্য প্রশাসনের নিকট আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন। স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার মিজানুর রহমান বলেন,নদী তীরবর্তী স্থান থেকে মাটিকাটা ও বালু উত্তোলনের ফলে ফসলি জমিসহ রাস্তার ব্যাপক ক্ষতি সাধন হচ্ছে তাই দ্রুত মাটিকাটা ও বালু উত্তোলন বন্ধ করতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান।নন্দীগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোসা. শারমিন আখতার এর সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করলে তিনি জানান নাগর নদী থেকে বালু উত্তোলন করলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন