কালিয়াকৈরে ডাকাতের ছুরিকাঘাতে স্বামী স্ত্রী আহত

কালিয়াকৈরে ডাকাতের ছুরিকাঘাতে স্বামী স্ত্রী আহত

 

কালিয়াকৈর(গাজীপুর)প্রতিনিধি
গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার মাটিকাটা মাঝুখান সড়কের বালুচরা নামক স্থানে ডাকাতের ছুরিকাঘাতে গুরুত্বর আহত হয়েছেন স্বামী স্ত্রী। সোমবার রাত সাড়ে ৮টার সময় মমিনুল ও শিরীন বেগম নামে দম্পতি কারখানা থেকে বাড়ী ফেরার পথে এঘটনা ঘটে। ছুরিকাহত দম্পতির বাড়ী গাইবান্ধা জেলার সদর থানার সন্ধিগ্রামে। দীর্ঘদিন যাবত উপজেলার মৌচাক ইউনিয়নের কৌচাকুড়ি এলাকায় বসবাস করছেন তারা। এসময় তাদের ডাকচিৎকারে স্থানীয়রা এসে ডাকাত সদস্য রাজনকে আটকিয়ে গনপিটুনি দেয়। ডাকাত সদস্য রাজন রতনপুর রেললাইন এলাকার জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে। ডাকাতের ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত মোমিনুল ও তার স্ত্রীকে হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শিরিন বেগম সোমবার নিজ কর্মস্থল পূর্বচান্দরা এ্যাপেক্স হোল্ডিংস লিঃ নামক পোশাক কারখানা থেকে বেতন উত্তোলন করেন। ছুটির পর স্বামী মোমিনুল তাকে আনতে কারখানা গেটে যান এবং স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে বাড়ীর উদ্দেশ্যে রওনা দেন। ফেরার পথে মাটিকাটা-মাঝুখান সড়কের বালুচড়ায় পৌছলে ৪/৫জনের ডাকাতদল প্রথমে তাদের গতিরোধ করে। এরপর ডাকাতদল শিরিন বেগমের কাছে থাকা বেতনের টাকা কেড়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এতে মোমিনুল বাধা দিলে তার বুকে ছুরিকাঘাত করে। এসময় স্বামীকে বাচাতে গেলে স্ত্রী শিরিন বেগমকেও ছুরিকাঘাত করা হয়। এসময় তাদের ডাকচিৎকারে আশেপাশের লোকজন এসে রাজন নামের এক ডাকাত সদস্যকে আটক করলেও বাকীরা পালিয়ে যায়। গুরুতর আহত মোমিনুল ও তার স্ত্রীকে প্রথমে সফিপুর মর্ডান হাসপাতালে নিয়ে গেলে মোমিনুলের অবস্থার অবনতি হলে পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। ডাকাত সদস্য রাজনকে স্থানীয় জনতা গনপিটুনি দিয়ে রাতে পুলিশে হাতে তুলে দেয়।
কালিয়াকৈর থানাধীন মৌচাক পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোঃ জামাল উদ্দিন জানান, খবর পেয়ে সোমবার রাত ১১টার দিকে জনতার হাতে আটক ডাকাত সদস্য রাজনকে মৌচাক ফাঁড়িতে নিয়ে আসা হয়। রাজন পূর্বের একটি ডাকাতি মামলার এজাহার ভূক্ত আসামী। বাদী না আসলে তাকে পূর্বের মামলায় চালান করা হবে। পরে বাদী আসলে এ ঘটনায়ও আরও একটি মামলা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন