আজ সোমবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৫:২৪ অপরাহ্


নড়াইলে দূর্গাপূজা পরিদশর্নে অতিরিক্ত ডিআইজি হাবিবুর রহমান!!

নড়াইলে দূর্গাপূজা পরিদশর্নে অতিরিক্ত ডিআইজি হাবিবুর রহমান!!

নড়াইলে শারদীয় দূর্গাপূজা পরিদর্শন করলেন খুলনা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি মোঃ হাবিবুর রহমান(বিপিএম),এডমিন এন্ড ফিন্যান্স এসে পৌছান। পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার), ডিআইজি কে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। এ সময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ ইমরান(সদর সার্কেল), সদর থানার অফিসার ইনচার্জ ইলিয়াস হোসেন (পিপিএম) সহ নড়াইলের দূর্গাপূজা উদযাঁপন কমিটির সভাপতি আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায় জানান, এসময় নড়াইল শহরের মন্দির বিভিন্ন পরিদর্শন করেন। এবং নড়াইলের সকল থানার মন্দির পরিদর্শন করেন। খুলনা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি মোঃ হাবিবুর রহমান(বিপিএম),এডমিন এন্ড ফিন্যান্স তার বক্তব্যে বলেন হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রানের উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে জেলা পুলিশের বিভিন্ন রকম নিরাপত্তা। এই উৎসব কে অবাধ ও সুষ্ঠ করতে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রস্ততি গ্রহন করা হয়েছে। সাভাবিক ভাবে এবং উৎসব মুখর পরিবেশে যাতে করে হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষেরা দূর্গাউৎসব পালন করতে পারে তার জন্য জেলার সকল মন্দিরে পর্যাপ্ত আইন সৃঙ্খলা বাহিনি মেতায়েন থাকবে। সেই সাথে নিরাপত্তার জন্য আনছার ও গ্রাম পুলিশ মোতায়েন থাকবে। শারদীয় দুর্গাপূজা কে অবাধ ও সুষ্ঠ করতে আমরা বদ্ধপরিকর। এই উৎসবে কেহ যদি অপ্রিতিকর কিছু করার চেষ্টা করে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে। কোন দুস্কৃতিকারী যেন আইন অমান্য করতে না পারে এবং সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ঘাটাতে না পারে সে জন্য সবাইকে স্বচেতন থাকতে হবে। মাদক বিক্রি এবং পূজা উপলক্ষে বিভিন্ন মন্ডপে আয়োজিত মেলায় জুয়া খেলার কোন সুযোগ নেই। পুলিশ জনগণের বন্ধু এ কথা পুথিতে নয় কাজেই প্রমাণ সেই সাথে যারা, ইয়বা, জঙ্গি, সন্ত্রাস, ইভটিজিং ও বাল্যবিবাহ রোধে একযোগে কাজ করার উদাত্ত আহ্বান জানান। সকল প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা রোধে সকলকে কঠোর নজরদারি রাখার জন্যও নির্দেশনা প্রদান করেন। তিনি আরও বলেন, পুলিশ ক্ষমতার বলে কাউকে কোনো প্রকার হয়রানি না করে সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে। কারো বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ পাওয়া গেলে তাকে কঠোর শাস্তি পেতে হবে বলেও হুশিয়ারি প্রদান করেন। জেলা পূজা উৎযাপন কমিটির সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক, ফ্যায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা,আনসার ভিডিপি কর্মকর্তাসহ নড়াইল জেলা পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের কর্মকর্তা ও নড়াইল জেলার পূজা মন্ডপের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ প্রমূখ। এসময় নড়াইল জেলার পূজা মন্ডপের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকদের পূজা মন্ডপ নিয়ে বিভিন্ন সমস্যার কথা তুলে ধরেন। নড়াইল ফ্যায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা বলেন,নড়াইল জেলার সকল পূজা মন্ডপের দিকে আপনারা নিজেরা নিজ দায়ীত্বে পালন করবেন,এবং আপনাদের জন্য আমাদের ফ্যায়ার সার্ভিসের এ্যাম্বুলেন্স ও মটর সাইকেল টিম সব সময় সর্বদা দেখা সোনা করবেন। পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার)’র তার বক্তত্বে বলেন, এবার নড়াইল সদর, ২৫৮ পূজা মন্ডপ, নড়াইলের লোহাগড়া থানায়, ১৫৫ পূজা মন্ডপ, নড়াইলের কালিয়া থানায়,৮৪ পূজা মন্ডপ ও নড়াইলের নড়াগাতী থানায়,৫৮ পূজা মন্ডপ সর্বমোট,৫৫৫ টি পূজা মন্ডপে শারদীয় দূর্গা পূজার অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। পূজা মন্ডপের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকদের উদ্দেশে বলেন,আপনাদের শারদীয়া দূর্গা পূজার অনুষ্ঠান ঘিরে নড়াইল জেলা পুলিশ ও আনসার বাহিনী সর্বদা সব সময় নজরদারী করবে। ধর্ম যার যার উৎসব সবার,আমরা সবাই নিয়ম শিংক্ষলা বজায় রেখে এ উৎসব করবো। কোন প্রকার অপত্তিকর ঘটনা ঘটালে সাথে সাথে নিকটস্থ থানায় খবর দিবেন,কেউ আইন নিজ হাতে তুলে নিবেন না,আইন সবার জন্য সমান,পুলিশ জনগনের বন্ধু,আপনারা পুলিশ কে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করুন। এসময় খুলনা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি মোঃ হাবিবুর রহমান(বিপিএম),এডমিন এন্ড ফিন্যান্স তার বক্তব্যে বলেন ধর্ম যার যার উৎসব সবার,আমরা যেন জঙ্গিবাদ মাদক এর দিকে যায়। আপনাদের ছেলে মেয়ে দের দৃষ্টি রাখতে হবে বলে তিনি জানান।

শেয়ার করুন