কবিতা

চন্দ্রাভিলাষী নারী




 পূর্ণিমাতে পূর্ণ হলো

 তোমার মনের সাধ

 তুমি অথৈ জলে খুঁজেছিলে

 পূর্নিমারই চাঁদ

তুমি বাসতে ভাল জলের খেলা

 ভয়াল নদী সাঁঝের বেলা

 সেই জলের মাঝে খুঁজতে তুমি

 দুর গগনের সাঁঝের তারা

 মেঘের ছায়া

 নীল সাগরে ভাসিয়ে দিতে

 আমার অপরাধ

 তুমি অথৈ জলে খুঁজেছিলে

 পূর্নিমারই চাঁদ

আজকে দেখ সবাই যেন

 ক্লান্ত চোখে তাকিয়ে আছে

 প্রাণের ভয়ে জলের দিকে

 দাড়িয়ে আছে গাছের মত

 গভীর শোকে স্তব্ধ পায়ে

 নিঃস্ব জলের বুকের ভেতর

 দাড়িয়ে আছে অষ্টপ্রহর

 কিন্তু তবু দুঃখ আমার ভিন্নপ্রকার

 মুষ্টিমেয় কয়টি লোকে

 চালায় গাড়ি জ্বালায় বাতি

 দিন দুপুরে ইচ্ছেমত ছিটিয়ে কাঁদা

 শখের গাড়ি যাচ্ছে দেখো যাচ্ছে দেখো

 রাজার মত নিজের বাড়ি

 ছিটিয়ে থুথু

 আমরা যারা দাড়িয়ে আছি

 নিঃস্ব জলের বুকের ভেতর

 চতুর্দিকে চোখের নিচে শবের খেলা

 কলার পাতে নিজের ছেলে

 শুইয়ে দিয়ে ভাবছি শুধু

 এবার থেকে তোমার চোখে পড়িয়ে দেব

 কোন সে মায়ার ফাঁদ

 তুমি অথৈ জলে খুঁজেছিলে

 পূর্নিমারই চাঁদ!