তাড়াশে চুরি আতঙ্কে রাত জেগে পাহারা

তাড়াশে চুরি আতঙ্কে রাত জেগে পাহারা

 

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি:

গরু চুরির ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় রাত জেগে পাহারা দিচ্ছে গ্রামবাসীরা। সিরাজগঞ্জ জেলার তাড়াশ উপজেলার দেশিগ্রাম ইউনিয়নে চলতি মাসে বলদীপাড়া গ্রাম থেকে ৬টি গরু চুরি হওয়ার পর চরম উৎকন্ঠা বিরাজ করছে এলাকায়। বিশেষ করে খামারীরা গরু চুরির শঙ্কায় রয়েছে আতংকে। চুরির ঘটনায় থানায় অভিযোগ দিলেও এখন পর্যন্ত কোন গরু উদ্ধার বা এর সাথে সম্পৃক্ত কাউকে ধরতে পারেনি পুলিশ।

সরেজমিনে উপজেলার বলদীপাড়া গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, গ্রামের বেশ কিছু মানুষ ঝড়-বৃষ্টি উপেক্ষা করে হাতে লাঠি নিয়ে ,বাঁশী বাজিয়ে পুরো গ্রামের রাস্তা ঘাট পাহারা দিচ্ছে। সারারাত পাহারা দেয়ার পর সকালে সূর্য উদয়ের সাথে সাথে বাড়ি ফিরছে তারা। এতে করে দৈনন্দিন কাজকর্মে অসুবিধা হলেও চুরি রোধে অনেকটা বাধ্য হয়ে পালাক্রমে পাহারা দিচ্ছে গ্রামবাসীরা।

বলদীপাড়া গ্রামের বেশ কয়েকজন খামারীরা জানান, আমরা বিভিন্ন সংস্থা থেকে ঋণ করে গরু পালন করছি। এই সম্পদ চুরি হয়ে গেলে রাস্তায় বসতে হবে। যেভাবে গরু চুরি হচ্ছে তাতে গরু চুরির আতঙ্কে বাধ্য হয়ে গ্রামের সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রতি রাতে পালা করে পাহারা দিচ্ছি। এর মাঝ থেকে সুলতান মাহমুদ বলেন, থানা থেকে পাহারা দেওয়ার কথা বলার পর ১৫ দিন ধরে বাড়ি বাড়ি ভাগ করে ১২ জনের গ্রুপ নিয়ে পাহারা দিচ্ছি। এতে যেন গরু চুরি না হয় সেই উৎসাহে আমরা পালাক্রমে পাহারা দিচ্ছি । ওই গ্রামের আব্দুর রহিম জানান, দল ভাগ করে পাহারা দেওয়ায় ১৫ দিন পরপর মাসে ২দিন করে পাহারা দিতে হয়। রাত ১০টা থেকে ভোর ৪টা পর্যন্ত একটানা পাহারা দেওয়া হয়।

এ ব্যাপারে তাড়াশ থানার (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, কয়েকটি গ্রামে চুরি হওয়ায় সেখানে আমরা গ্রাম পুলিশ, কমিউনিটি পুলিশের সদস্য এবং পুলিশের টহল বৃদ্ধি করা হয়েছে। গ্রামবাসীরা যে উদ্দ্যোগ নিয়েছে নি:সন্ধেহে এটি ভালো কাজ। চোর চক্রকে ধরতে পুলিশ তৎপর রয়েছে। আশা করছি খুব তারাতারি এই চক্রকে আইনের আওতায় নিয়ে আসতে সক্ষম হবো।

শেয়ার করুন