নড়াইলে গুজব ছড়ানোর অপরাধে এক যুবককে গ্রেফতার

নড়াইলে গুজব ছড়ানোর অপরাধে এক যুবককে গ্রেফতার

উজ্জ্বল রায়, নড়াইল জেলা সংবাদদাতা : এস পি’র আল্টিমেটামের পর সোশ্যাল মিডিয়াতে গুজব ছড়ানোর অপরাধে নড়াইলে এক যুবককে গ্রেফতার “বাংলাদেশের পদ্মা সেতু নির্মান চলতে পথে বাধা পড়েছে তাই ১,০০,০০০, এক লক্ষ বা তার অধিক পরিমানের মানুষের মাথা প্রয়োজন, পদ্মা সেতু কাজ চালাতে বাংলাদেশের প্রধান মন্ত্রীর নিদের্শে সারা বাংলাদেশে ৪২টি দল বের হয়েছে এই মাথা সংরক্ষনের জন্য” এমনই ভাবে নাজমুল হোসাইন নামে ফেসবুক আই ডি থেকে গুজব পোষ্ট করার অপরাধে নড়াইলে মোঃ নাজমুল হোসেন ওরফে বাবু (৪০) কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায় জানান, এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নড়াইলের নড়াইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল), শেখ ইমরান, নড়াইলের (কালিয়া সার্কেল) রিপন বিশ্বাস, এ সময় উপস্থিত ছিলেন, নড়াইল সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. ইলিয়াস হোসেন (পিপিএম), নড়াইল জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আশিকুর রহমান, ডিআইও-১ এস এম ইকবাল হোসেনসহ, নড়াইলের সকল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাবৃন্দ ও পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের কর্মকর্তারা, এ সময় গণমাধ্যমকর্মীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নড়াইল জেলা অনলাইন মিডিয়া ক্লাবের সভাপতি উজ্জ্বল রায়, ভোরের বাংলা পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক মোঃ হিমেল মোল্যাসহ ক্লাবের সকল সদস্যবৃন্দসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন । শুক্রবার (২৬,জুলাই) দুপুরে জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পি পি এম বার তার সম্মেলন কক্ষে এ তথ্য প্রদান করেন। তিনি আরো বলেন, পদ্মা সেতুতে মানুষের মাথা লাগবে মর্মে একব্যক্তি নড়াইল সদর থানাধীন মহিষখোলা এলাকায় অপপ্রচার চালাচ্ছে । এমন অভিযোগে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে নয়টার সময় জেল গেটের সামনে থেকে নাজমুলকে তার স্যামসং মোবাইল সহ আটক করা হয়। মোঃ নাজমুল হোসেন ওরফে বাবু সদর পৌরসভাধীন মহিষখোলা গ্রামের মৃত মোহর আলী সরদারের ছেলে। আইন শৃংখলা অবনতি ঘটানোর উদ্দেশ্যে রাষ্ট্রের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন ও অপপ্রচার করায় আসামীর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে। উল্লেখ্য মোঃ নাজমুল হোসেন ওরফে বাবুর এ লেখা অন্য একটি ফেসবুক আই ডি কাজী হাসানুজ্জামান মিন্টুর আই ডি পাওযা যায় বলে তার বিরুদ্ধে একই আইনে মামলা হয়েছে। নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার) আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায়কে জানান, ছেলে ধরা আর গলাকাটা নিয়ে যখন গ্রামের মানুষের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে। ঠিক তখনই সকল থানার ওসিরা বিদ্যালয় কমিউনিটি পুলিশিং ও এন্টিক ক্রাইম মিটিং উক্ত মিটিংয়ে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল), শেখ ইমরান অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সহকারি শিক্ষক স্কুলের শিক্ষার্থীরা ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন বর্তমান ছেলেধরা গুজব চলছে এ কথাটি সত্য নয় এই বিদ্যালয়ের কোন ছাত্রছাত্রী যেন এই গুজবে কান না দেয় সেদিকে শিক্ষক ও অভিভাবকদের কঠোর নজরদারিতে রাখতে হবে কোন ছেলে মেয়ে মাদক জঙ্গিবাদ ইভটিজিং এ জড়িয়ে না পড়ে সেদিকে ও সকলের সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে দিনভর মাইকিং করে ছেলে ধরা ও গলাকাটা গুজবে কান না দিতে জণসচেতনতা সৃষ্টির জন্য এলাকবাসিদের সতর্ক করেছে থানা পুলিশ। মাইকিংয়ে করে বলা হয়েছে, ছেলে ধরা বা গলাকাটা সন্দেহে কোন মানুষকে গণপিটুনি দেবেন না। আর গণপিটুনি দিতে গিয়ে কেউ আইন হাতে তুলে নেবেন না। কোন লোককে সন্দেহ হলে সঙ্গে সঙ্গে পুরিশকে জানাতে বলা হয়েছে। এছাড়া ওইসব সতর্ক বার্তা পৌঁছে দিতে পুলিশ কর্মকর্তারা উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্র, শিক্ষক ও অভিভাবকদের নিয়ে সমাবেশ করেছেন। ওই সব সমাবেশে ওই ধরণের অপপ্রচার ও গুজবভীতি থেকে মানুষকে সতর্ক করতে এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। অপরদিকে কেই যাতে আইন হাতে তুলে নিয়ে নিজেদেরকে বিপদগ্রস্থ করতে না পারে,সে জন্য সমাবেশ ও মাইকিংয়ের মাধ্যমে সকলকে সচেতন করা হচ্ছে। নড়াইলের সকল থানার ওসি অংশগ্রহন করেছেন। এছাড়াও সমাজের অনেক গণ্যমাণ্য ব্যক্তিবর্গ গুজব বিরোধী সচেতনতা মুলক অংশ গ্রহণ করেন। পুলিশ সুপার জানান, গুবজ বিরোধী প্রচারণা এ সপ্তাহ থেকে ৩১ জুলাই পর্যন্ত চলতে থাকবে।

শেয়ার করুন