আজ বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০৭:৪৭ অপরাহ্


দিনাজপুরে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্র-ছাত্রীদের অভিযোগ

দিনাজপুরে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্র-ছাত্রীদের অভিযোগ

দিনাজপুর প্রতিনিধি:  দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলায় বেলতলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্র-ছাত্রীদের ফকিরের বাচ্চাসহ অশালীন ভাষা প্রয়োগের গুরুতর অভিযোগ দেয়া হয়েছে।
অভিযোগ সুত্রের আলোকে জানা যায়, গত ২৫ জুলাই বৃহস্পতিবার ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহবুবা আক্তার ৫ম শ্রেণির গণিত ক্লাসে ছাত্র-ছাত্রীদের প্রাইভেট না পড়া, গাইড না কেনায় সকলকে ফকিরের বাচ্চাসহ বিভিন্ন অশালীন ভাষা প্রযোগ করে। এতে শিক্ষার্থীর স্কুল ছুটি শেষে বাড়িতে পৌঁছে কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে এবং আর কোনদিন স্কুল না যাওয়ার বায়না ধরে। অভিভাবকগণ তাদের সন্তানদের কাছে অশালীন ভাষা শোনার পর ক্ষুদ্র ও প্রতিবাদমুখর হয়ে ওঠে। মজিদা খাতুন নামে একজন মহিলা অভিভাবক ওই বিদ্যালয়ের সভাপতি বরাবরে সুবিচারের দাবিতে একটি লিখিত অভিযোগ করে। জানতে চাইলে ওই ছাত্রী অভিভাবক জানান, আমার মেয়ে সালমা খাতুন ওই বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেনিতে পড়ে। গাইড না কেনায় ও প্রাইভেট প্রধান শিক্ষক আমার মেয়েকে ফকিরের বাচ্চাসহ অনেক কটুক্তিমূলক ভাষা প্রয়োগ করলে সে বাড়িতে এসে ফুঁপিয়ে ফুঁপিয়ে কাদতে শুরু করে। কারণ জানতে চাইলে সে জানায়, হেড আপা আমাদের বাচ্চাসহ অনেক খারাপ ভাষা বলেছে। এতে ক্ষুদ্ধ হয়ে সুবিচারেরদাবিতে ও মেয়ের লেখাপড়ার নিরাপদ পরিবেশ ফিরিয়ে দিতে আমি সভাপতির কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি। অভিযোগ দেয়ার পর থেকে ওই প্রধান শিক্ষক ও তার লোকেরা আমার বাড়িতে এসে ফিরিয়ে নিতে বিভিন্ন কথাবার্তাসহ হুমকী প্রদান করছে। সভাপতির কাছে সুবিচার না পেলে প্রয়োজনে উর্ধ্বতন কতৃপক্ষেও কাছে বিচার চাইব। ওই বিদ্যালয়ের ৫ শ্রেণির ছাত্রী দোলাসহ ক’জন ছাত্রী অশালীন ভাষা প্রয়োগের কথা স্বীকার করে বলেন, শনিবারে হেডআপা ক্লাসে এসে এ কথা কাউকে না বলতে নিষেধ করেছেন। বিদ্যালয় সভাপতি অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। প্রাথমিকভাবে সত্যতা পাওয়া গেছে। আরো অধিকতর তদন্ত করে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের সঙ্গে আলোচনা ও পরামর্শ করে ব্যবস্থ্য নেয়া হবে।

শেয়ার করুন