সাঁওতাল পল্লীতে অগ্নিসংযোগ মামলার সাবেক এমপিসহ মূল আসামিদের চার্জশীট থেকে নাম বাদ দেয়ার প্রতিবাদ

সাঁওতাল পল্লীতে অগ্নিসংযোগ মামলার সাবেক এমপিসহ মূল আসামিদের চার্জশীট থেকে নাম বাদ দেয়ার প্রতিবাদ

 

গাইবান্ধা জেলা সংবাদদাতাঃ
বহুল সমালোচিত গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম এলাকায় নিহত তিন সাঁওতাল শ্যামল, মঙ্গল ও রমেশ হতা মামলার চুড়ান্ত অভিযোগপত্রে এজাহারভূক্ত আসামী সাবেক সাংসদ আবুল কালাম আজাদ ও সাঁওতালদের বাড়ী ঘরে আগুন লাগিয়ে দেয়া পুলিশকে বাদ দেয়ার প্রতিবাদে ৩০ জুলাই মঙ্গলবার আদিবাসী সাঁওতাল ও বাঙালিরা গাইবান্ধা জেলা শহরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে। মঙ্গলবার সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম-ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটির এই কর্মসুচি পালন করে। বিক্ষোভ মিছিল শেষে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে এ ঘটনার বিচারের দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

গোবিন্দগঞ্জ সাঁওতাল পল্লী থেকে বিক্ষুদ্ধ সাঁওতাল নেতাকর্মীরা গাইবান্ধা শহরে এসে বিভিন্ন ফেস্টুন, পতাকা নিয়ে জেলা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে বিক্ষোভ মিছিল করে। মিছিল শেষে গাইবান্ধার শহরের ডিবি রোডের ১নং ট্রাফিক মোড়ে এক প্রতিবাদ সমাবেশ করে। সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম-ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটির সভাপতি ফিলিমন বাসকের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জেলা কমিটির সভাপতি মিহির ঘোষ, আদিবাসী বাঙালী সংহতি পরিষদের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম বাবু, বাসদ সমন্বয়ক গোলাম রব্বানী, সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম-ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটির সাধারন সম্পাদক জাফরুল ইসলাম প্রধান, সাঁওতাল হত্যার মামলার বাদী থমাস হেমব্রম, আদিবাসী নেত্রী রোমেলা কিসকু, ভিজিলিয়াস, ভূমি সংগ্রাম কমিটির নেতা স্বপন শেখ, ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটির নেতা ময়নুল হক, মিজান প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, ঘটনার প্রায় তিনবছর পর চুড়ান্ত অভিযোগ পত্রে ঘটনার সাথে সরাসরি যুক্ত এজাহারভূক্ত আসামী গোবিন্দগঞ্জ আসনের তৎকালিন সাংসদ অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ ও প্রকাশ্যে সাঁওতালদের বাড়ি ঘরে অগ্নিসংযোগকারী পিআইবি পুলিশ গুরুত্বপূর্ণ আসামীদের নাম বাদ দেয়া হয়েছে। তারা আরও বলেন, বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত আগুন লাগানোর ফুটেজ, ছবি প্রকাশ পেলেও পিআইবির তদন্তকারী কর্মকর্তারা তা এড়িয়ে গেছেন। এথেকে অনুমিত হয় পুলিশ প্রভাবিত হয়ে এই চার্জশীট প্রদান করেছেন। তাই তারা এই প্রতিবেদনকে প্রত্যাখ্যান করেন।

শেয়ার করুন