পঞ্চগড়ে ৪৫ টাকা কেজি দামে পেঁয়াজ বিক্রি

পঞ্চগড়ে ৪৫ টাকা কেজি দামে পেঁয়াজ বিক্রি

অবশেষে পঞ্চগড়ে ৪৫ টাকা কেজি দরে টিসিবির পেঁয়াজ বিক্রি শুরু হয়েছে। বুধবার (০৪ ডিসেম্বর) সকালে জেলা শহরের সরকারি অডিটোরিয়াম চত্বরে পেঁয়াজ বিক্রির উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন।এ সময় পুলিশ সুপার ইউসুফ আলী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদর্শন কুমার রায়, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গোলাম রব্বানীসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন। স্থানীয় বাজারে বর্তমানে ২২০ থেকে ২৩০ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি হয়।

এদিকে, টিসিবি ডিলারের মাধ্যমে কম দামে পেঁয়াজ বিক্রির খবর পেয়ে মুহূর্তেই বিভিন্ন শ্রেণিপেশার ক্রেতায় ভরে যায় অডিটোরিয়াম চত্বর। নারী, শিশু থেকে বৃদ্ধরা লাইনে দাঁড়িয়ে পেঁয়াজ কিনতে হুমড়ি খেয়ে পড়েন।ক্রেতাদের চাপ সামলাতে বাড়তি পুলিশ মোতায়েন করা হয়। বড় আকৃতির তুরস্কের এই পেঁয়াজ জনপ্রতি এক কেজি করে দেয়া হয়। প্রথম দিনে এক হাজার কেজি পেঁয়াজ এক ঘণ্টার মধ্যেই বিক্রি হয়ে যায়। লাইনে দাঁড়িয়ে কম দামে পেঁয়াজ কিনতে পেরে খুশি অনেকেই। আবার অনেকেই দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে পেঁয়াজ না পেয়ে শূন্য হাতে বাড়ি ফিরে গেছেন।

শহরের রামের ডাংগা মহল্লার রিকশাচালক রফিকুল ইসলাম বলেন, কয়েক দিন ধরে পেঁয়াজ কিনতে বলছিল স্ত্রী। বাজারে গিয়ে দাম দেখে আর পেঁয়াজ কেনা হয়নি। পেঁয়াজ ছাড়াই চলছিল আমাদের সব রান্না। মাছ মাংস না কিনলেও ডাল ভর্তা করতে পেঁয়াজ লাগে। এজন্য সমস্যা হচ্ছিল। কয়েকদিন পর আজ পেঁয়াজ কিনতে পেরে খুব খুশি লাগছে।

টিসিবির ডিলার সজিব প্রধান বলেন, আজকে এক হাজার কেজি পেঁয়াজ এক হাজার ক্রেতার কাছে বিক্রি করা হয়। চাহিদা ব্যাপক থাকায় ভিড় সামলাতে আমাদের হিমশিম খেতে হয়। এক ঘণ্টার মধ্যেই সব পেঁয়াজ বিক্রি হয়ে যায়। আপাতত প্রতি বুধ ও বৃহস্পতিবার পেঁয়াজ বিক্রি করা হবে। আবার বরাদ্দ পেলে একইভাবে কম দামে টিসিবির পেঁয়াজ বিক্রি চলতে থাকবে।জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন বলেন, শুরুতে বিভাগীয় শহরগুলোতে টিসিবি ডিলারদের মাধ্যমে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু হয়। আমরা আগেই চাহিদা দিয়ে রেখেছিলাম। অবশেষে আমাদের জেলা শহরে ৪৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু হলো। শিগগিরই বিভিন্ন উপজেলায় পেঁয়াজ বিক্রি শুরু হবে। আশা করি স্থানীয় পেঁয়াজের বাজারে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে।

শেয়ার করুন