কবিতা

নিসর্গ সুন্দরী

নিসর্গ সুন্দরী
মেহনাজ শাহরীন

ঐ যে আদিগন্ত বিস্তৃত মাঠ
সবুজ ধানের ঢেউ
রৌদ্রালোকিত দ্বিপ্রহরে শান্ত দীঘির জল
আম, জাম, তালের বনে ঝিরঝিরে বাতাস ;
সবতাতেই যেন নিসর্গ সুন্দরীর
মায়াবী পায়ের ছাপ।

যে ভিটাতে এসে নিসর্গ সুন্দরী
দু’দন্ড জিরোন
তা যেন হয়ে উঠে সবুজ, সুন্দর, সকরুণ।
বাংলাদেশ নামক দেশ টি কি
নিসর্গ সুন্দরীর জন্মভিটা?
তাই হবে হয়তো,
তাইতো রূপোর মতো মাছেরা
জ্যোৎস্না রাতে ধীবরের নৌকোয়
ধরা দেয় মোহিনী বেশে।
আটপৌরে রমণীরা যখন
নিত্য গৃহকর্ম সেরে আসন্ন সন্ধ্যার আঁধারে
গা ধুতে যায় ঘাটে।

সেইসব রমণীদের মুখচ্ছবি…..
সেইসব আসন্ন সন্ধ্যা….
গাছের ডালে ডালে ডেকে চলা
সেইসব কাক, শালিক, চড়ুইয়ের ঘরে ফেরা…..
নিসর্গ সুন্দরীর আলতা রাঙা
মায়াবী পায়ের ছাপ সবতাতেই।

কারো কারো বুকের পরেও
তিনি রেখে যান
তার মায়াবী পায়ের ছাপ।
যখন সবাই ঘরের দোর এঁটে
নির্জন দুপুরে খানিক ঘুমোতে ব্যস্ত
তখন সেই কেউ কেউ
মাঠ, জলা-জঙ্গল ভেঙে
কি যেন বেড়ায় খুঁজে!

-২১/০৬/২০১৮

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *