নগর-মহানগরসারাদেশ

নড়াইলে যানজট ঠেকাতে ট্রাফিক পুলিশ!!

প্রচন্ড তাপদাহে নড়াইল শহরের যানযট নিরসনে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে নড়াইলের ট্রাফিক পুলিশ।

 

জেলা প্রতিনিধিঃ প্রচন্ড তাপদাহে নড়াইল শহরের যানযট নিরসনে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে নড়াইলের ট্রাফিক পুলিশ। পুলিশ সুপার এসপি মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, পিপিএম (বার)র দিক নির্দেশনা বাস্তবায়নে ইতিমধ্যে সফলও হয়েছেন তারা। প্রচন্ড গরমে মানুষ যখন ঘর থেকে বের হতে দশবার চিন্তা করে, সেখানে নড়াইলের ট্রাফিক সদস্যরা প্রকৃতির নিষ্ঠুরতাকে উপেক্ষা করে শহরের যানজট ঠেকাতে ঘামে ভেজা শরীর নিয়ে রাস্তার যানজট নিরসেন ব্যস্ত সময় পাড় করছে নড়াইল টাঙ্গাইল ট্রাফিক পুলিশের দায়িত্বরত প্রতিটি সদস্যরা। নড়াইল শহরের যানজট পূর্ণ এলাকা হিসেবে বেবিস্ট্যান্ড, বাসস্ট্যান্ড, কলেজ মোড়, জেলা সদর গেট, নতুন বাসস্ট্যান্ড, বটতলা মানুষের চোখে ভেসে উঠে।
এলাকার মোঃ হিমেল মোল্যা নামে এক পথচারী এ প্রতিবেদককে জিজ্ঞেস করেন, আজ শহরে কিছু হয়েছে কি? এমন প্রশ্নের কারণ জানতে চাইলে প্রতিবেদকে ঐ পথচারী বলেন, রাস্তা ফাঁকা দেখে জিজ্ঞেস করলাম। মোড়ে দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশ নজরুল, ওমর ও শিমুল বলেন, ভাই সারাদিন ডিউটি করে ঘামে পোশাক ভিজে যায়। রাতে বাসায় গেলে শরীরে মাঝে মধ্যে জ¦র ওঠে আসে। এলাকায় দায়িত্বরত সার্জেন বলেন, আমরা প্রচার চাইনা, পথচারীদের যাত্রা নিরাপদ ও যানযট মুক্ত করতে পেরেছি, এটাই আত্মতৃপ্তি। এরকম পরিবেশ কি শুধু ঈদ পর্যন্ত না ধারাবাহিক ভাবে চলবে? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি আমার মেধা ও শ্রম দু’টোই কাজে লাগিয়েছি। আশা করছি সারা বছরই
এ ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে। নড়াইলের ট্রাফিকের টি আই পানু বলেন, আমি এবং আমার সহকর্মীরা পুলিশ সুপার এসপি মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, পিপিএম (বার) স্যারের দিক নির্দেশনা বাস্তবায়নে ইতিমধ্যে সফলও হয়েছেন নির্দেশে প্রচন্ড তাপদাহ সহ্য করেও নিরলস ভাবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছি। কতটা সফল তা বিচার করবে নড়াইলের জনগণ।
নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার), নড়াইল জেলা অনলাইন মিডিয়া ক্লাবের সভাপতি উজ্জ্বল রায়কে জানান, নড়াইল শহরের যানযট নিরসনে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে ট্রাফিক পুলিশ তিনি আরো বলেন, আমরা ঈদ মার্কেটকেন্দ্রিক নিরাপত্তা বলয় তৈরি করেছি। নির্বিঘ্নে টাকা লেনদেনের ক্ষেত্রে ব্যাংকগুলোর ম্যানেজারদের সঙ্গে কথা বলেছি। বড় অংকের টাকার ক্ষেত্রে গ্রাহকেরা পুলিশের সহযোগিতা নিতে পারেন। বিশেষ করে ঈদকে কেন্দ্র করে যারা বাড়িতে আসবেন, সেক্ষেত্রে আইন-শৃঙ্খলার যাতে কোনো অবনতি না হয়; সে লক্ষ্যে গ্রাম ও শহরে ঈদের দিন এবং পরবর্তী সময়গুলো আমরা গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করছি। সাদা পোশাকের পুলিশের পাশাপাশি সিনিয়র অফিসারদের নের্তৃত্বে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) কাজ করছে।

Related Articles