ফিচার

বিজয়ের মাস অন্যরকম

ফিচার ডেস্ক :

আমদের বাঙালি জাতির ইতিহাসে অনন্য গৌরবময় বিজয়ের মাস শুরু হয়েছে আজ। ত্রিশ লাখ শহীদ আর দুই লাখের বেশি নির্যাতিতার শোষণ-বঞ্চনার বিনিময়ে ১৬ ডিসেম্বর বিজয় ছিনিয়ে এনেছিল বাঙালিরা। জাতির ইতিহাসে স্মরণীয়-বরণীয় এই মাসটি নানা কর্মসূচির মাধ্যমে উদযাপন করে বাঙালিরা। কিন্তু অন্য বছরগুলোর থেকে এ বছরের বিজয়ের মাসটি একটু আলাদা। গত বছর বা তার আগের বছরগুলোতে বিজয়ের মাসে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবিটা জোরালো ভাবে উচ্চারিত হতো। এ বিষয়টি নিয়ে অনেক আলোচনা হতো। কিন্তু এবার বিজয়ের মাসটি এমন এক সময়ে পালিত হচ্ছে, যখন যুদ্ধাপরাধীদের বিচারকাজ শেষ হয়েছে এবং শীর্ষ যুদ্ধাপরাধীদের শাস্তি কার্যকর হয়েছে। এর মাধ্যমে শহীদদের রক্তের ঋণ কিছুটা হলেও শোধ করতে পেরেছে বাঙালি। যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের মাধ্যমে একটা কলঙ্ক থেকেও মুক্তি পেয়েছে জাতি।বিএনপি-জামাত জোট সরকারের শাসনামলে শীর্ষ যুদ্ধাপরাধীদের বহাল তবিয়তে ঘুরে বেড়াতে দেখেছি আমরা। সেসময় মন্ত্রী প্রতিমন্ত্রীসহ রাষ্ট্রের শীর্ষ পর্যায়ে একাত্তরের ঘাতক দালালদের বসানো হয়েছিল। নিরীহ বাঙালিদের সঙ্গে যারা বিশ্বাসঘাতকতা করেছিল তাদের গাড়িতেই শোভা পেয়েছিল শহীদদের রক্তে অর্জিত জাতীয় পতাকা। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এসে শুধু ওই লজ্জার অবসানই ঘটায়নি একই সঙ্গে তাদের বিচারও করেছে। এর ফলে কয়েক দশকের কলঙ্ক থেকে মুক্তি পেয়েছে বাঙালি জাতি। একারণে এবারের বিজয়ের মাসটি অন্য বছরগুলোর থেকে একেবারেই ভিন্ন।