ঈদের নাটক সিন্ডিকেটের কবলে

ঈদের নাটক সিন্ডিকেটের কবলে

বিনোদন রিপোর্ট :

টিভি নাটক নিয়ে সিন্ডিকেটের ঘটনা নতুন নয়। দীর্ঘদিন ধরেই সিন্ডিকেটের কবলে পড়ে আছে টিভি নাটক। কিন্তু ঈদের নাটক নিয়ে সিন্ডিকেটের ঘটনা নতুনই বলা যায়। খোঁজ নিয়ে এবং তারকাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, পরিচালক-প্রযোজকদের মতো অভিনয়শিল্পীদের বিশেষ একটি চক্র নিয়ন্ত্রণ করছে এবারের ঈদের নাটক। তাদের অনেকেই আবার নিজেও পরিচালক ও প্রযোজক। তারাই নির্ধারণ করে দিচ্ছেন কোন নাটক কোন চ্যানেলে প্রচারিত হবে! আর কার নাটকে কে অভিনয় করবেন!

এই তালিকায় প্রথমেই নাম এসেছে মোশাররফ করিম, অপূর্ব, আফরান নিশো, জোভান, তৌসিফসহ অনেকের। অভিযোগ উঠেছে, কোনো পরিচালক যদি অপূর্বর কাছ থেকে নাটকের সিডিউল চান, তাহলে তিনি তার বিপরীতে নায়িকা হিসেবে মেহজাবীনকে নির্ধারিত করে দেন। আবার আরফান নিশোকে নিয়ে কাজ করতে গেলে তিনি বাধ্য করেন তার বিপরীতে তানজিন তিশাকে নিতে।

অন্যদিকে মোশাররফ করিমের সঙ্গে তার স্ত্রী জুঁই করিমকে নেয়ার জন্য পরিচালককে বাধ্য করা হয়। যার ফলশ্রম্নতিতে গত ঈদুল ফিতরে

অনেক নাটকে অপূর্ব-মেহজাবীন, আফরান নিশো-তানজিন তিশা, মোশাররফ করিম-জুঁইকে দেখা গেছে।

এদিকে নতুন কোনো পরিচালককে দীর্ঘদিন বিভিন্ন অজুহাতে নাটকপ্রতি এক লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ারও অভিযোগ পাওয়া গেছে। অনেক শিল্পীই সিডিউল ফাঁকা থাকলেও কেবলমাত্র বিভিন্ন শর্ত মানাতে পরিচালককে বাধ্য করান। তবে এসব অভিযোগ নিয়ে কথা বলতে গেলে বিষয়টি পুরোপুরি সত্য নয় বলে জানান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেশ কয়েকজন পরিচালক জানান, যখন তারা ঈদের নাটক বানানোর জন্য অপূর্ব-নিশোকে প্রয়োজন হয়, তখন তাদের বেঁধে দেয়া নায়িকা নিলে অনেক সময় নাটকের মান খারাপ হয়। যে চরিত্রের জন্য মনে মনে যাকে পছন্দ করে রাখি, সেই চরিত্রে অন্য কেউ অভিনয় করলে স্বভাবতই এর মান মনের মতো হবে না।

বিশ্বস্ত একটি সূত্র জানায়, এই সিন্ডিকেটের সঙ্গে জড়িত রয়েছে কিছু পরিচালক ও নাটক এজেন্সিগুলো। তারা আগ-ভাগেই সেরা সেরা শিল্পীদের সিডিউল নিয়ে কিছু নামকরা টিভি চ্যানেলে টিভি চাঙ্ক কিনে বিভিন্ন স্পন্সর নিয়ে ইউটিউবে স্বত্ব ছাড়া কম বাজেটে চালিয়ে দেন। আসলে সবার পক্ষে তো এসব সিন্ডিকেট ম্যানেজ করা সম্ভব নয়।

শেয়ার করুন