ইতিহাস-ঐতিহ্য

বিলুপ্তির পথে গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্য ‘ঢেঁকি’

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) থেকে :

ও বউ ধান ভানে রে/ঢেঁকিতে পাড় দিয়া/ ঢেঁকি নাচে বউ নাচে/ হেলিয়া দুলিয়া /ও বউ ধান ভানে রে……। গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্য ঢেঁকি নিয়ে লেখা এ গানটিতে ঢেঁকির সাথে গ্রামীণ নারীর মধুর সম্পর্কের চিত্রটাই যেন ফুটে উঠেছে।ঢেঁকি ধান ভানা বা ফসল কোটার একটি যন্ত্র। জানা গেছে, প্রাচীনকাল থেকেই গ্রামাঞ্চলের মানুষ ধান ভানার জন্য ঢেঁকির ওপর নির্ভরশীল ছিল। এছাড়া গম, চিড়া, হলুদ, মরিচ প্রভৃতি শস্য কোটার যন্ত্র হিসেবে এটি ব্যবহৃত হতো।আগের দিনে প্রায় প্রতিটি বাড়িতেই ঢেঁকি ছিল। ঢেঁকি ঘরে থাকতো ঢেঁকি। বাড়ির মেয়েরা ভোর রাত থেকেই শুরু করতো ধান ভানার কাজ। ঢেঁকির ঢাকুর-ঢেকুর শব্দে বাড়ির অন্য সবার ঘুম ভাঙতো। ঢেঁকিতে পাড় দিয়ে ধান ভানতো আর মনের সুখে গান গাইতো তারা । ঢেঁকিতে কে কতটা পাড় দিতে পারে- তাদের মধ্যে চলতো সে প্রতিযোগিতা । গ্রামীণ বধূদের আলতা রাঙা পায়ের স্পর্শে ঢেঁকিও যেন নেচে-গেয়ে উঠতো !প্রতিবছর নবান্ন উৎসবে গ্রামগুলোতে ঢেঁকিতে পাড় দিয়ে চাল গুড়ো করার উৎসব পড়ে যেত। চালের সে গুড়ো দিয়ে তৈরি করা হতো নানা রকমের পিঠা-পায়েশ। তাছাড়া ঢেঁকিতে ছাঁটাই করা চালের ভাত খেতে খুব সুস্বাদু ও স্বাস্থ্য সম্মত । আধুনিকতার যান্ত্রিক ছোয়ায় গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্য এ ঢেঁকি এখন বিলুপ্তির পথে।

 

Related Articles