শিরোনাম
  পলাশবাড়ীতে সেচ্ছাসেবকলীগের শীতবস্ত্র বিতরণে কেন্দ্রীয় সভাপতি সম্পাদক       গাইবান্ধায় আমান উল্যাহ উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা       গাইবান্ধায় বোরো চাষে ব্যস্ত কৃষকরা       কুমিল্লার চান্দিনায় ধর্ষণের প্রতিবাদ করায় খুন হয় নাছির ।       তাড়াশে মৌলিক সাক্ষরতা প্রকল্পের ২য় পর্বের প্রশিক্ষণ উদ্বোধন       চান্দিনায় অজ্ঞাত নারীর মরদেহ উদ্ধার।       কালিয়াকৈরে শীর্ষ সন্ত্রাসী পিচ্ছি আকাশসহ গ্রেফতার ২       স্কাউটের মাধ্যমে শিশুরা প্রকৃতির সান্নিধ্যে থেকে বিজ্ঞানমনস্ক হয়ে উঠে সিমিন হোসেন রিমি এমপি       ডিমলায় ভিক্ষুকদের মাঝে শুকনা খাবার ও শীতবস্ত্র বিতরণ       দাদন ব্যবসায়ীর মারপিটে স্কুল শিক্ষকের মৃত্যু    

আজ শুক্রবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২০, ০৯:৪৬ অপরাহ্


আন্দোলনের হিরো গ্রেটা থানবার্গ

আন্দোলনের হিরো গ্রেটা থানবার্গ

সুইডেনের অধিবাসী গ্রেটা থানবার্গ। মাত্র ১৬ বছর বয়সে পৃথিবীজুড়ে সাড়া ফেলে দিয়েছেন এ কিশোরী পরিবেশবাদী। তার ডাকে পরিবেশ রক্ষার আন্দোলনে জড়ো হয়েছেন বিভিন্ন দেশের নানা বয়স ও শ্রেণি-পেশার প্রায় অর্ধকোটি মানুষ। খুব কম মানুষই এখন পাওয়া যাবে, ছোট্ট এ মেয়েটির নাম শোনেনি। ২০০৩ সালের ৩ জানুয়ারি সুইডেনের স্টকহোমে জন্ম গ্রেটার। ওপেরা শিল্পী মা মালেনা এর্নমান, অভিনেতা বাবা সভান্তে থানবার্গ এবং অভিনেতা ও চলচ্চিত্র পরিচালক দাদা ওলফ থানবার্গের ভীষণ আদরের মেয়েটির ছোটবেলায়ই একটি সমস্যা ধরা পড়ে। ডাক্তার পরীক্ষা করে জানান, তার ‘অ্যাসপার্গার’স’ নামক এক ধরনের অটিজম রয়েছে। এ অ্যাসপার্গার’স সিনড্রোমে আক্রান্ত শিশুর সামাজিক যোগাযোগ এবং অবাচনিক পদ্ধতিতে ভাবের আদান-প্রদান করতে উল্লেখযোগ্যমাত্রার সমস্যা হয়। এছাড়াও আরও কিছু বিকাশগত জটিলতা থাকতে পারে শিশুটির। এ অ্যাসপার্গার’স সিনড্রোমের ধারাবাহিকতায় তার মধ্যে অবসেসিভ কম্পালসিভ ডিজঅর্ডার (ওসিডি) এবং সিলেকটিভ মিউটিজমের মতো আরও দুটি মানসিক বিকাশগত জটিলতা শনাক্ত হয় গ্রেটার মাঝে। অবশ্য স্পষ্টবাদী গ্রেটার তাতে দুঃখ নেই। তিনি মনে করেন, এ অটিজমের কারণেই তিনি ‘গণ্ডির বাইরে গিয়ে’ ভাবতে পেরেছেন। তবে এটুকু ছাড়া অন্যদের থেকে নিজেকে কখনোই আলাদা ভাবেন না তিনি। আমি যদি অন্যদের মতো না হতাম; তবে ক্লাস বাদ দিয়ে ধর্মঘটে বসতাম না। সত্যিই হয়তো তাই।
অনেক আগে থেকেই পরিবেশ রক্ষা নিয়ে চিন্তিত ছিলেন গ্রেটা থানবার্গ। তিনি জানান, ২০১১ সালে তিনি প্রথম জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কে জানতে পারেন। তখন তার বয়স মাত্র ৮ বছর। তিনি বুঝতেই পারছিলেন না, বিষয়টি যদি এতটাই গুরুতর হয়; তবে কেন এ নিয়ে কিছু করা হচ্ছে না। এর বছর তিনেক পর গ্রেটার আচরণে পরিবর্তন দেখা যেতে শুরু করে। তিনি কেমন যেন অবসন্ন এবং নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়েন। দেখতে দেখতে খাওয়া-দাওয়া এবং কথা বলা বন্ধ করে দেন গ্রেটা। ওই সময়ই চিকিৎসক পরীক্ষা করে জানান তার অটিজমের কথা। এর পরবর্তী প্রায় দুই বছর গ্রেটা তার বাবা-মাকে চ্যালেঞ্জ করলেন পরিবারের প্রাত্যহিক কর্মকাণ্ডে কার্বন বর্জ্য ও কার্বন নিঃসরণ কমাতে। এজন্য পরিবারের সবাইকে তৃণভোজী হওয়ার এবং আকাশপথে সফর বন্ধ করার দাবি জানালেন এ কিশোরী। গ্রেটার ভাষায়, একটা সময় বাবা-মা তার দাবি মেনে নিয়ে তার বিশ্বাস ও স্বপ্নের পথে এগিয়ে যাওয়ার জন্য অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করেছেন। তবে গ্রেটা কঠোর কর্মসূচি শুরু করেন গত বছর, যার কারণে তিনি পরিচিতি পেতে শুরু করেন জাতীয় পরিসরে। ২০১৮ সালে ১৫ বছর বয়সি গ্রেটা থানবার্গ সবে পড়তেন নবম শ্রেণিতে। তীব্র তাপপ্রবাহ ও দাবানলে সুইডেনের অবস্থা ভয়াবহ। আবহাওয়ার রেকর্ড অনুসারে, ২০১৮ সাল ছিল সুইডেনের ২৬২ বছরের মধ্যে উষ্ণতম গ্রীষ্মকাল। জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে না বলেই প্রকৃতি এত প্রতিকূল হয়ে উঠছে বলে শনাক্ত করেন গ্রেটা। তাই ওই বছরের ২০ আগস্ট সিদ্ধান্ত নেন ক্লাসে না গিয়ে ৯ সেপ্টেম্বরের সাধারণ নির্বাচন পর্যন্ত আন্দোলন করবেন তিনি।
গ্রেটার দাবি ছিল, সুইডিশ সরকারকে অবিলম্বে প্যারিস চুক্তির সঙ্গে সংগতি রেখে দেশে কার্বন নিঃসরণ কমাতে হবে। এজন্য তিনি দেশের পার্লামেন্ট ‘রিকসদাগ’র সামনে টানা তিন সপ্তাহ বসে আন্দোলন করেছেন। হাতে ছিল জলবায়ুর জন্য স্কুল ধর্মঘট লেখা প্ল্যাকার্ড। এমনকি তিনি আশপাশ দিয়ে যাওয়া সবাইকে লিফলেটও বিতরণ করছিলেন, যেখানে লেখা ছিল : আমি এটা করছি, কারণ তোমরা বড়রা আমার ভবিষ্যৎ ধূলিসাৎ করে দিচ্ছ।
গ্রেটার এসব কাজ অনুপ্রাণিত করেছে স্কুলের ছোট ছোট শিশু থেকে শুরু করে বিশ্বের বিভিন্ন বয়সের মানুষকে। তার চেষ্টার জন্য চলতি বছরের শুরুতে গ্রেটাকে নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্যও মনোনীত করা হয়েছিল। বিভিন্ন সম্মাননা এবং পরিবেশবিষয়ক স্কলারশিপ পেয়েছেন গ্রেটা থানবার্গ। তবে একাধিক পুরস্কার তিনি প্রত্যাখ্যান করেছেন, কারণ সেগুলো পেতে হলে তার আকাশপথে সফর করা বাধ্যতামূলক ছিল। এছাড়া টাইম ম্যাগাজিন তাকে ২০১৮ সালের সবচেয়ে প্রভাবশালী ২৫ কিশোর-কিশোরীর তালিকায় স্থান দিয়েছে। এত ছোট বয়সে জলবায়ু আন্দোলনে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখার কারণে এবারের জাতিসংঘ জলবায়ুবিষয়ক ‘ক্লাইমেট অ্যাকশন সামিট, ২০১৯’-এ বক্তব্য রাখতে আমন্ত্রণ জানানো হয় গ্রেটাকে। কিশোরী গ্রেটা সম্মেলনে অংশ নিতে রাজিও হন। কিন্তু তার শর্ত ছিল, উড়োজাহাজে আসবেন না তিনি। আসবেন এমন কোনো যানে, যেখানে কার্বন নিঃসরণ হবে শূন্যের কাছাকাছি। অবশেষে গত আগস্টে যুক্তরাজ্য থেকে একটি বিশেষ ইয়ট জাতীয় জাহাজে নিউইয়র্কের উদ্দেশে রওনা দেন গ্রেটা।
‘মালিজিয়া টু’ নামক দ্রুতগতির জাহাজটি পানির নিচে টার্বাইন ঘোরানোর মাধ্যমে চলে। ইয়টটি থেকে কোনো ধরনের কার্বন নিঃসরণ হয় না। এমনকি এতে ছিল না কোনো গোসলখানা বা টয়লেট। যাত্রীরা পুরোটা সময় শুকনো এবং বরফে জমানো খাবার খেয়ে দিন কাটিয়েছেন, গ্রেটাও। যাত্রাপথের নানা খুঁটিনাটি তিনি তার টুইটার অ্যাকাউন্টে শেয়ার করেছেন। ১৫ দিন ধরে আটলান্টিক মহাসাগরে প্রায় ৩ হাজার মাইল পাড়ি দিয়ে অবশেষে যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছান গ্রেটা। জাতিসংঘের জলবায়ুবিষয়ক ক্লাইমেট অ্যাকশন সামিটে ঝড় তুললেন এক কিশোরী। নিউইয়র্কে জলবায়ু সম্মেলনে, গ্রিন হাউস গ্যাসের নির্গমন রোধে ব্যর্থতার মধ্য দিয়ে তার প্রজন্মের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতার অভিযোগ তুলে বিশ্বনেতাদের চমকে দিয়েছেন এ পরিবেশবাদী কিশোরী। ২০১৮ সালে তীব্র তাপপ্রবাহ ও দাবানলে সুইডেনের অবস্থা যখন ভয়াবহ, তখন জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে না বলেই প্রকৃতি এত প্রতিকূল হয়ে উঠছে বলে শনাক্ত করেন এ কিশোরী। পরে সেই কিশোরী ওই বছরের ২০ আগস্ট সিদ্ধান্ত নেন ক্লাসে না গিয়ে ৯ সেপ্টেম্বরের সাধারণ নির্বাচন পর্যন্ত আন্দোলন করবেন তিনি। অনেক আগে থেকেই পরিবেশ রক্ষা নিয়ে চিন্তিত ছিলেন গ্রেটা থানবার্গ। তিনি জানান, ২০১১ সালে তিনি প্রথম জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কে জানতে পারেন। তখন তার বয়স মাত্র ৮ বছর। সে দাবি করে সুইডিশ সরকারকে অবিলম্বে প্যারিস চুক্তির সঙ্গে সংগতি রেখে দেশে কার্বন নিঃসরণ কমাতে হবে। এজন্য তিনি দেশের পার্লামেন্ট রিকসদাগ’র সামনে টানা তিন সপ্তাহ বসে আন্দোলনও করেছেন।
রাষ্ট্রপুঞ্জের জলবায়ু সামিটে তার আবেগময় বক্তৃতা আগেই নজর কেড়ে নিয়েছিল সারা পৃথিবীর। আর তারপরই ফের একবার খবরের শিরোনামে সুইডেনের কিশোরী পরিবেশকর্মী গ্রেটা থানবার্গ। সুইডেনের বিকল্প নোবেল ‘রাইট লাইভলিহুড’ পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে তাকে। গ্রেটাসহ এ পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছেন মোট চারজন। পৃথিবীর সমস্যা সমাধানের জন্য যেসব সাহসী মানুষ এগিয়ে আসেন, তাদের সম্মান জানাতেই এ বিকল্প নোবেল দেওয়া হয় সুইডেনে।
১৯৮০ সাল থেকে শুরু হয়েছে এ পুরস্কারটি। এক বিবৃতির মাধ্যমে গ্রেটা জানিয়েছেন, এ সম্মানের অধিকারী হতে পেরে তিনি কৃতজ্ঞ। তবে নিজেকে এ সম্মানের একমাত্র দাবিদার হিসেবে তুলে ধরতেও নারাজ তিনি। পরিবেশ রক্ষার জন্য পৃথিবীজুড়ে সব বয়সের মানুষের মধ্যে যে আন্দোলন গড়ে উঠেছে, নিজেকে সে মানুষদের একজন বলে জানিয়েছেন গ্রেটা। ‘তাদের সবার সঙ্গে এ পুরস্কার আমি ভাগ করে নিতে চাই’, বলেছেন সুইডিশ কিশোরী। এ বছর ডিসেম্বর মাসের ৪ তারিখে অনুষ্ঠিত হবে পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠান। প্রত্যেক বিজয়ীকে এক লাখ তিন হাজার ডলার অর্থমূল্যে পুরস্কৃত করা হবে, যাতে তারা নিজের কাজ আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেন। জলবায়ু সম্মেলনে ঝড় তোলে গ্রেটার ভাষণ। পরিবেশ রক্ষায় ব্যর্থ হওয়ার জন্য পৃথিবীর তাবড় রাষ্ট্রনেতাদের কঠোরভাবে ভর্ৎসনা করেন গ্রেটা। নিজের ভাষণে গ্রেটা বলেন, ‘আমার এখানে থাকারই কথা নয়। বরং সাগরের অন্য পারে নিডেক স্কুলে পড়াশোনা করার কথা। আপনাদের ফাঁকা বুলি আমার স্বপ্ন, আমার ছেলেবেলা, সব কেড়ে নিয়েছে। মানুষ কষ্ট পাচ্ছে, মানুষ মরছে, পুরো পরিবেশতন্ত্রটাই ধসে পড়ছে। আমরা গণবিলুপ্তির মুখে দাঁড়িয়ে আছি আর আপনারা শুধু টাকার কথা বলছেন, অন্তহীন অর্থনৈতিক বৃদ্ধির আকাশকুসুম গল্প বলছেন! গ্রেটার এ দৃঢ ভাষণ নিমেষে ভাইরাল হয়ে যায়। তারপরই তাকে দেওয়া হলো এ সম্মান।

শেয়ার করুন

পলাশবাড়ীতে সেচ্ছাসেবকলীগের শীতবস্ত্র বিতরণে কেন্দ্রীয় সভাপতি সম্পাদক

গাইবান্ধায় আমান উল্যাহ উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা

গাইবান্ধায় বোরো চাষে ব্যস্ত কৃষকরা

কুমিল্লার চান্দিনায় ধর্ষণের প্রতিবাদ করায় খুন হয় নাছির ।

তাড়াশে মৌলিক সাক্ষরতা প্রকল্পের ২য় পর্বের প্রশিক্ষণ উদ্বোধন

চান্দিনায় অজ্ঞাত নারীর মরদেহ উদ্ধার।

কালিয়াকৈরে শীর্ষ সন্ত্রাসী পিচ্ছি আকাশসহ গ্রেফতার ২

স্কাউটের মাধ্যমে শিশুরা প্রকৃতির সান্নিধ্যে থেকে বিজ্ঞানমনস্ক হয়ে উঠে সিমিন হোসেন রিমি এমপি

ডিমলায় ভিক্ষুকদের মাঝে শুকনা খাবার ও শীতবস্ত্র বিতরণ

দাদন ব্যবসায়ীর মারপিটে স্কুল শিক্ষকের মৃত্যু