নগর-মহানগরসারাদেশ

সাভারে আবার পোশাক শ্রমিকদের বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক :

ঢাকার অদূরে,সাভারের খাগানে কর্মরত পোশাক  শ্রমিকদের অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।তাদের ন্যূনতম মজুরি কাঠামো  বাস্তবায়ন, বৈষম্য দূরীকরণসহ বিভিন্ন দাবিতে আন্দোলনরত শ্রমিকরা আজ দুপুর ১২টায়  সাভার খাগানের, ২টি কারখানায়  শ্রমিক অসন্তোষের ঘটনা ঘটেছে।পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে  আনতে সাভারের খাগান এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ  ছাড়াও শ্রমিক অসন্তোসের কারণে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে কর্তৃপক্ষ খাগানের মোজার্ট নীট লিমিটেড কারখানা  ছুটি ঘোষণা করেছে। এর মধ্যে সাভারে স্ট্যান্ডার্ড গ্রুপের তিনটি কারখানা অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।কারখানার শ্রমিক ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নতুন বেতন কাঠামোতে মজুরি বৈষম্যের কারণে তারা কয়েকদিন ধরে কর্ম বিরতিসহ বিক্ষোভ করে আসছেন। এরই ধারাবাহিকতায় বুধবার সকালে সাভারের উলাইল বাসস্ট্যান্ড এলাকার ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে তারা। শ্রমিকরা রাস্তায় আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করলে পুলিশ তাদের বুঝিয়ে রাস্তা থেকে সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় শ্রমিকরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট পাটকেল নিক্ষেপ শুরু করলে পুলিশ টিয়ারসেল ছুঁড়ে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করে দেওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ জলকামান নিক্ষেপ ও লাঠিচার্জ করে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। টানা চার ঘণ্টা ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার পর শ্রমিকদের মহাসড়ক থেকে সড়িয়ে দিলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।এ দিকে সকালে হেমায়েতপুর এলাকার সাভার ট্যানারি শিল্পনগরী-হেমায়েতপুর সড়ক অবরোধ করে রাখলে সেখানেও শ্রমিকদের সাথে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ ছাড়াও আশুলিয়ার কাঠগড়া, জিরাবো ও নরসিংহপুরসহ প্রায় ১২টি স্পটে শ্রমিকদের সাথে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে পুলিশসহ অন্তত ২০ শ্রমিক আহত হয়।এক সপ্তাহ ধরে ন্যূনতম মজুরি বাস্তবায়ন, মজুরি বৈষম্য দূরীকরণসহ বিভিন্ন দাবিতে রাজধানীর উত্তরা, সাভার ও আশুলিয়া এবং গাজীপুরের বিভিন্ন এলাকায় শ্রমিকদের বিক্ষোভ চলে আসছে। মঙ্গলবার মজুরি নিয়ে অসন্তোষ-বিক্ষোভের মধ্যে সুমন মিয়া নামের এক শ্রমিকের মৃত্যু হয় সাভারে।বিক্ষোভরত শ্রমিকেরা দাবি করেন, আনলিমা টেক্সটাইলের শ্রমিক সুমন পুলিশের গুলিতে মারা গেছেন। শ্রমিক নিহত হওয়ার জের ধরে বুধবার ওই পোশাক কারখানাটি একদিনের জন্য সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ।এদিকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক ও বাইপাইল-আব্দুল্লাহপুর মহাসড়ক অবরোধ করার ফলে এই দুটি মহাসড়কে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়। যাত্রীরা পড়ে চরম দুর্ভোগে। অপরদিকে টানা চতুর্থ দিনের মতো কারখানাগুলোতে উৎপাদন বন্ধ থাকায় মালিকরা চরম বিপাকে পড়েছেন।

Related Articles