নীলফামারীতে অগ্নিকান্ডে ১৫দোকান পুড়ে ছাই

নীলফামারীতে অগ্নিকান্ডে ১৫দোকান পুড়ে ছাই

ছবি- প্রতিদিনের আলো ।

নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার গয়াবাড়ি ইউনিয়নের সুটিবাড়ি বাজারের জালাল মির্জা মার্কেটের ১৫টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালামাল আসবাবপত্র ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এই অগ্নিকান্ডে ক্ষতির পরিমান প্রায় অর্ধকোটি টাকা বলে স্থানীয়রা ধারনা করছেন।জানা গেছে, রোববার (২২-সেপ্টেম্বর) দিবাগত গভীর রাতে উপজেলার সুটিবাড়ি বাজারের পশ্চিম প্রান্তে প্রধান সড়ক সংলগ্ন জালাল মির্জা মার্কেটের ফরহাদ হোসেনের খাবারের হোটেলের চুলা থেকে আগুনের সুত্রপাত ঘটে। তার হোটেলের চুলার উপর খড়ি শুকানোর জন্য রাখাছিল। সে সময় হোটেলের ভেতরে ঘুমাচ্ছিল হোটেলের কিশোর কর্মচারী নজরুল ইসলাম। আগুন লাগারপর এলাকার লোকজন বুঝতে পেরে তাকে হোটেলের ভেতর থেকে উদ্ধার করে। পরে ডিমলা ফায়ার সার্ভিস ও এলাকাবাসীর নিরলস প্রচেস্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আসলেও ওই আগুনে হোটেলের পাশে থাকা ডেন্টাল সার্জন জহিরের সকল যন্ত্রপাতি আসবাবপত্র, ঔষধ, নবিউল ইসলামের দোকানের নতুন ৩০টি বাইসাইকেল ও যন্ত্রাংশ সহ মোট প্রায় ১৫টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও মালামাল পুড়ে যায়। এতে ওই মার্কেটের প্রায় ৫০লাখ টাকার ক্ষতি হয়।
ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের দাবী হোটেল ব্যবসায়ী ফরহাদ হোসেন শিশু শ্রমিক নজরুলকে দিয়ে চুলার উপরে খড়ি শুকাতে গিয়ে আগুনের সুত্রপাত হয়। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন উক্ত ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান সামসুল হক ।
ডিমলা সিভিল ডিফেন্স ফায়ার সার্ভিস ইনচার্জ আবু বকর সিদ্দীক জানান, ডিমলা ফায়ার সার্ভিস ও এলাকাবাসী মিলে অক্লান্ত পরিশ্রম করে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনায় পাশে অবস্থিত পূবালী ব্যাংকসহ শতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রক্ষা পায়। তিনি জানান প্রাথমিকভাবে তদন্তে হোটেলের চুলার উপর রাখা খড়ি থেকে আগুনের সুত্রপাত ঘটেছে বলে ধারনা করা হচ্ছে। ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুন নাহার বলেন, হোটেল ব্যবসায়ী ফরহাদ হোসেনের অবহেলায় আগুনের সুত্রপাত হলে পুলিশ তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।

শেয়ার করুন