নন্দীগ্রামে আবারো ১৯টি খরের গাদায় আগুন দিল দূর্বৃত্তরা

নন্দীগ্রামে আবারো ১৯টি খরের গাদায় আগুন দিল দূর্বৃত্তরা

বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলায় একরাতে ১৯টি খরের গাদায় আগুন দিল দূর্বৃত্তরা। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। গতকাল রোববার রাতে উপজেলার নন্দীগ্রাম সদর ইউনিয়নের বিজয়ঘাট ও তৈঘরী গ্রামে খরের গাদায় এ আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রোববার রাতে উপজেলার সদর ইউনিয়ন তেঘরী গ্রামের কৃষক আবুল আহাদের ৩ টি, আমজাদ হোসেনের ৪টি, জাকির হোসেনের ৩ টি, এমতাজ উদ্দিনের ২টি, এবং বিজয় ঘাট গ্রামের কৃষক খলিলুর রহমানের ১টি, আব্দুল খালেকের ২টি, আব্দুর রহমানের ১টি, আজাহার আলীর ৩টি খরের গাদায় আগুন দিয়েছে দূর্বৃত্তরা। আগুনের শিখা দেখে স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। পরে শেরপুর ও বগুড়ার ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিটের সদস্যরা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।
সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রভাষক আব্দুল বারী জানান, একরাতে ১৯টি খরের গাদায় কে বা কাহারা আগুন দিয়েছে। এতে করে তাদের প্রায় ৫ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।
এর আগে, গত ২২ ডিসেম্বর রাতে বিজয় ঘাট গ্রামের সাহেব আলীর ১টি, নূরনবীর ১টি ও আবুল কালামের আলীর ১টি খরের গাদায় আগুন দেয় দূর্বৃত্তরা। এছাড়া ২০ নভেম্বর রাতে কৃষক মোসলেম উদ্দিন ও তার দুই ভাইয়ের প্রায় ২০০ বিঘার খরের গাদা ও ৮০ মণ ধানে ও ২২ নভেম্বর সন্ধ্যায় মুথারাপুর গ্রামের লোকমান আলীর খরের গাদায় দূর্বৃত্তরা আগুন দেয়।
এ প্রসঙ্গে থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাসির উদ্দিন বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। তবে ঘটনাটি নিয়ে তদন্ত চলছে।

শেয়ার করুন