সিরাজগঞ্জে ৭৫ হাজার মানুষ পানিবন্দি

সিরাজগঞ্জে ৭৫ হাজার মানুষ পানিবন্দি

ডেস্ক রিপোর্ট :

পাহাড়ি ঢল ও প্রবল বর্ষণে যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় সিরাজগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে। চরাঞ্চলের বন্যাকবালিত এলাকার প্রায় ৭৫ হাজার মানুষ এখন পানিবন্দি।কাজিপুরে সুমন (১০) নামে এক শিশু বন্যার পানিতে গোসল করতে গিয়ে ডুবে মারা গেছে। বর্তমানে যমুনা নদীর পানি বিপদ সীমার ৩০ সেঃ মিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ডের এসও হেডকোয়ার্টার রনজিৎ কুমার সরকার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, উজানের ঢলে ও টানা বর্ষণে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় যমুনা তীরবর্তী সিরাজগঞ্জের চৌহালী, শাহজাদপুর, এনায়েতপুর, কাজিপুর, বেলকুচি ও সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার নিম্নাঞ্চল বন্যাকবলিত হয়ে পড়েছে এবং নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। এসব এলাকার অধিকাংশ কাঁচা ও পাকা সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। চলনবিলের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় তাড়াশ ও উল্লাপাড়া উপজেলার নিম্নাঞ্চল বন্যাকবলিত হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে যমুনার তীরবর্তী ৫টি উপজেলার চরাঞ্চলের বিভিন্ন স্থানে বন্যা পরিস্থিতি অবনতি ঘটছে।

জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা আব্দুর রহিম জানান, সোমবার সকাল থেকে জেলা বন্যা নিয়ন্ত্রণ কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। রোববার বিকেলে কাজিপুরে ওই শিশু পানিতে ডুবে মৃত্যু ও যমুনা নদীর তীরবর্তী ৫টি উপজেলার প্রায় ৩০ হাজার মানুষ পানিবন্দির কথা স্বীকার করেছেন। বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

এদিকে ঘাটাইল সেনানিবাসের জিওসি মিজানুর রহমান শামিম ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সোমবার দুপুরের দিকে সিরাজগঞ্জ সদর ও কাজিপুর উপজেলার বন্যাকবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন। এ বিষয়ে তারা সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসনের সাথে এক বৈঠকে মিলিত হন এবং বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলার বিষয়ে খোঁজ-খবর নেন। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ ফিরোজ মাহমুদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

শেয়ার করুন