পাবনায় পুলিশের এসআই জেলহাজতে

পাবনায় পুলিশের এসআই জেলহাজতে

ঢাকার (ডিএমপি) যাত্রাবাড়ী থানায় কর্মরত পুলিশের এসআই নাসির আহম্মেদকে যৌতুক মামলায় বিজ্ঞ আদালত জেল হাজতে প্রেরণ করছে। মঙ্গলবার দুুপুরে পাবনার নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ ওলিউল ইসলাম এ আদেশ দেন।আদালত সূত্রে জানা গেছে, পাবনা সদর উপজেলার বলরামপুর গ্রামের সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে পাবনার বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালে ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধিত-২০০৩) এর ১১(খ)(গ) ৩০ ধারায় এসআই নাসির আহম্মেদ, মোস্তাক আহম্মেদ, সালমা আহম্মেদ ও লাকী খাতুনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং- ১৮৯/২০১৯, এনএস- ২৯/২০২০।

উক্ত মামলায় বাদী অভিযোগ করেন তার মেয়ে রুবিনা আক্তার রুনার সাথে পাবনা শহরের কাচারী পাড়ার মোস্তাক আহম্মেদের ছেলে নাসির আহম্মেদের পুলিশে চাকরি পাওয়ার আগেই পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই ৫ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবিতে স্বামী পুলিশের এসআই নাসির আহম্মেদ স্ত্রী রুবিনা খাতুনের ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালায়। এক পর্যায়ে যৌতুক না পেয়ে অন্যান্য আসামিদের যোগসাজশে নাসির আহম্মেদ স্ত্রী রুবিনা আক্তার রুনাকে মারপিট করে আহত করে। এছাড়াও আসামি নাসির আহম্মেদ পরকীয়ায় আসক্ত বলেও মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে। উক্ত মামলায় নাছির আহম্মেদ গং-এর বিরুদ্ধে  আদালত গ্রেফতারি পরওয়ানা ইস্যু করেন।

মঙ্গলবার মামলার ধার্য তারিখের আগেই ঢাকার যাত্রাবাড়ী থানায় কর্মরত এসআই নাসির আহম্মেদ বিজ্ঞ আদালতে সশরীরে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে বিজ্ঞ আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাকে জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ দেন। আদালতের আদেশের পরে পুলিশের এসআই নাসির আহম্মেদকে পাবনা জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

শেয়ার করুন